শীর্ষ সংবাদ
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site
Home / ত্রিপল / জয় বাংলাকে বিসর্জন দিয়ে স্বাধীনতার কথা বলা ভাঁওতাবাজি এবং আত্মপ্রতারণা করা মাত্র
রিয়াজ উদ্দিন ইসকা

জয় বাংলাকে বিসর্জন দিয়ে স্বাধীনতার কথা বলা ভাঁওতাবাজি এবং আত্মপ্রতারণা করা মাত্র

ফেঞ্চুগঞ্জ |১৬ ডিসেম্বর ২০১৬:

স্বাধীনতা যুদ্ধের বিরোধিতাকারী ছাড়া সমগ্র জাতি মহান বিজয় দিবস উদযাপন করছেন। নানা কর্মসূচিতে বাঙ্গালীর মুক্তিসংগ্রাম, মুক্তিযুদ্ধ, শহীদদের আত্মত্যাগ,, বীর মুক্তিযোদ্ধাদের কাহিনী তুলে ধরাসহ মহান স্বাধীনতার চেতনাকে লালন করার অঙ্গীকার ব্যক্ত করা হবে। স্বাধীনতা অর্জনের বিজয় উৎসবে (মাত্র দুটি ক্ষেত্র ছাড়া) উপেক্ষিত থাকবে বাঙ্গালীর জয়ধ্বনি!! একাত্তরের রণধ্বনি ঊচ্চারিত হবে না অরাজনৈতিক প্রতিষ্ঠান, সংঘ-সংস্থার অনুষ্ঠানে!!! ১৯৭৫য়ের ১৫ই আগস্টের পরে পাকিস্তানী ভাবধারা ফিরিয়ে আনতে ‘জয় বাংলা’ ধ্বনিকে নির্বাসনে পাঠায় সরকারপক্ষ। এখন স্বাধীনতার স্বপক্ষের সরকার ক্ষমতায়। তবুও ‘জয় বাংলা’ ধ্বনি শুধুমাত্র রাজনৈতিক বিষয় হয়ে গেছে। আরো সঙ্কীর্ণতায় এটি যেন বিশেষ দলীয় শ্লোগান! জাতীয় হীনমন্যতার বড় ঊদাহরণ এটি। ,জয় বাংলা শ্লোগানকে দলীয় শ্লোগান, রাজনৈতিক শ্লোগান আখ্যা দিয়ে প্রকারান্তরে একধরণের রাজাকারী করা হচ্ছে। একাত্তরে যে জয় বাংলা ধ্বনি সমগ্র জাতির সাহস, ঐক্য ও সংহতির আকাঙখার প্রতীক ছিল তা এখন ভুলিয়ে দেওয়া হচ্ছে। একাত্তরে বাঙ্গালী জাতির আরেক পরিচয় ছিল ‘জয় বাংলার লোক’। ক্ষমতার রাজনীতি, গোলামীর মানসিকতা এবং একাত্তরের পরাজয়ের প্রতিশোধ স্পৃহায় সুকৌশলে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে বিতর্কিত ও দুর্বল করার অপচেষ্টা থেমে নেই। বীর মুক্তিযোদ্ধাদেরকে রাজনৈতিক দলের অঙ্গসংগঠনভুক্ত করাও সেই বিনাশী নীলনকশার অংশ। ,আমাকে একজন মুক্তিযোদ্ধা দেখান যিনি একাত্তরে জয় বাংলা ধ্বনি দেননি। দেখাতে পারবেন না। এখন সেই মুক্তিযোদ্ধাদের একাংশ জয় বাংলা বলতে কুণ্ঠিত হন কেন? দলীয় আনুগত্য কি তার চেতনাকে শৃঙখলবন্দী করেনি? সেই দলই বা কোন দল, কাদের দল? একাত্তরের জেড ফোর্স প্রধান, বীর উত্তম জিয়াউর রহমানকে বিএনপি বলে স্বাধীনতার ঘোষক। বিএনপি কেন জয় বাংলা বলে না? জয় বাংলাকে আওয়ামীলীগের পাতে ঠেলে দিয়ে কাদেরকে কাছে টানা হয়েছে? মুক্তিযুদ্ধ-প্রজন্মের দল জাসদ, বাসদ ইত্যাদি কেন জয় বাংলা বলতে গাঁইগুঁই করবে? সিপিবি, ন্যাপসহ বামদল গুলো ‘মেহনতি জনতার/ সর্বহারাদের জয় হোক’ বলতে পারে কিন্তু জয় বাংলা বলবে না কেন? ,আওয়ামীলীগ না করলে জয় বাংলা বলা যায় না? জয় বাংলা তো আওয়ামীলীগের সম্পত্তি নয়। জয় বাংলা বাঙ্গালী জাতির সম্পদ। সরকারীদল কি বিরোধীদল – সবার সম্পদ। আওয়ামীলীগের বিরোধীতা করবেন? সরকারের পতন ঘটাবেন? যাই করুন, জয় বাংলা বলে করুন। জয় বাংলার বিরোধীতা করতে যাবেন কেন যদি পাকিস্তানপন্থী না হয়ে থাকেন। জয় বাংলা শুনে বেজার হবে নব্য রাজাকাররা। কথা পরিষ্কার। জয় বাংলা আমাদের স্বাধীনতার রক্তাক্ত অর্জন।জয় বাংলাকে বিসর্জন দিয়ে স্বাধীনতার কথা বলা, বিজয় দিবস পালন করা ভাঁওতাবাজি এবং আত্মপ্রতারণা করা মাত্র। ,মহান বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা। জয় বাংলা।

আপনার মন্তব্য

Check Also

কুয়েত আ. লীগের কমিটিতে ফেঞ্চুগঞ্জের ফুয়াদ আহমদ

রুমেল আহমদ, ফেঞ্চুগঞ্জ : বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কুয়েত কেন্দ্রীয় শাখার আইন-বিষয়ক সম্পাদক নির্বাচিত হলেন ফুয়াদ আহমদ। কুয়েত …